• জাতীয়:  দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ২৩৫ জনের মৃত্যু *** "জাতির পিতার এই দেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না" *** "প্রযুক্তি নির্ভর ডিজিটাল ব্যাংকিং করার এখন সময়ের প্রয়োজন" *** সারাদেশ: শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌ-রুটে ঢাকায় ফিরতি মানুষের ঢল *** রামেকে করোনায় মৃত্যু ১৯ জনের  *** সারাবিশ্ব:  ‘কোভ্যাক্সিন’ ট্রায়ালের অনুমোদন দিল বাংলাদেশ *** ইরানি রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে যুক্তরাজ্যে *** বিশ্বে একদিনে করোনায় মৃত্যু ৮ হাজারের বেশি *** খেলাধুলা: বল গ্যালারিতে গেলেই নতুন বলে শুরু হবে খেলা *** ঘোষণা: লকডাউনের কারণে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড অনিয়মিত হচ্ছে। সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত। *** সিটিজেন জার্নালিজমকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে নিউজফ্ল্যাশ৭১; জেলা/উপজেলা/ পৌরসভা থেকে সংবাদ পাঠাতে আগ্রহীরা শিগগিরই সিভি (CV) পাঠান এই মেইলে- [email protected] *** সবধরনের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন: https://www.newsflash71.com *** সংবাদ ও ভিডিও পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন: fb/newsflash71bd *** সব ধরনের ভিডিও চিত্র দেখতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল ভিজিট করুন: youtube.com/newsflash71 ***  


শিশু সাঈদ হত্যায় ৩ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ২২ জুন ২০২১ ১৬:২১; আপডেট: ৪ আগস্ট ২০২১ ০৩:১৪

শিশু সাঈদ হত্যায় ৩ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল

২০১৫ সালে সিলেট নগরীর শাহ মীর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র শিশু আবু সাঈদ হত্যা মামলায় বিচারিক আদালতের দেওয়া তিন আসামির মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট।

আসামিরা হলেন বরখাস্তকৃত পুলিশ কনস্টেবল এবাদুর রহমান পুতুল, সিলেট জেলা ওলামা লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাকিব ও পুলিশের কথিত সোর্স আতাউর রহমান গেদা। আসামিদের ডেথ রেফারেন্স ও খালাস চেয়ে করা আপিল খারিজ করে মঙ্গলবার (২২ জুন) বিচারপতি সহিদুল করিম ও বিচারপতি মো. আখতারুজ্জামানের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে পুতুলের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির, রাকিবের পক্ষে আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা এবং আতাউর রহমানের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. সিদ্দিকুর রহমান।

২০১৫ সালের ১১ মার্চ সিলেট নগরীর শাহ মীর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র আবু সাঈদ (৯) অপহৃত হয়। অপহরণের তিন দিন পর ১৪ মার্চ নগরীর ঝর্নারপাড় সোনাতলা এলাকায় পুলিশ কনস্টেবল এবাদুর রহমান পুতুলের বাসার ছাদের চিলেকোঠা থেকে আবু সাঈদের বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরে একই বছরের ২৩ সেপ্টেম্বর এ মামলায় চার জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন কোতোয়ালি থানার তৎকালীন পরিদর্শক (তদন্ত) মোশাররফ হোসেন।

চার্জশিটে অভিযুক্তরা হলেন, সিলেটের বিমানবন্দর থানার সাবেক কনস্টেবল এবাদুর রহমান পুতুল, সিলেট জেলা ওলামা লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাকিব, পুলিশের কথিত সোর্স আতাউর রহমান গেদা এবং ওলামা লীগ নেতা মাহিব হোসেন মাসুম।

নিহত আবু সাঈদ সিলেট নগরীর রায়নগর শাহ মীর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ও রায়নগর দর্জিবন্দ বসুন্ধরা ৭৪ নম্বর বাসার আব্দুল মতিনের ছেলে। তাদের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার এড়ালিয়া বাজারের খশিলা এলাকায়।

বিচার শেষে একই বছরের ৩০ নভেম্বর মাসুমকে খালাস দিয়ে বাকি তিন জনকে মৃত্যদণ্ড দেন সিলেটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুর রশিদ। পরে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের ডেথ রেফারেন্স ও খালাস চেয়ে করা আবেদন শুনানির জন্য হাইকোর্টে আসে।

এনএফ৭১/আরএইচ/২০২১




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর

যোগাযোগ: বাড়ি-৫৪৮, রোড-১৩, বারিধারা ডিওএইচএস, ঢাকা-১২০৬

ফোন : ০২ ৮৪১৮০৭৬

ইমেইল : [email protected]

Developed with by dataenvelope
Top